mohamed Salah, egypt, nigeria,
আফ্রিকান কাপ অব নেশনসের বাছাইপর্বে ৬-০ গোলে নাইজেরিয়াকে হারিয়েছে মিসর। এ ম্যাচে দুটি পেনাল্টি মিস করলেও নিজে জোড়া গোল করার পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়ে আরও দুটি গোল করিয়েছেন মোহাম্মদ সালাহ।

মাঠের বাইরে বিতর্ক চললেও মাঠের ভেতরে কিন্তু মোহাম্মদ সালাহ সব সময়ই দলের জন্য। সে হোক মিসর কিংবা লিভারপুল। কাল যেমন আফ্রিকান কাপ অব নেশনসের বাছাইপর্বে সালাহ দুটি পেনাল্টি মিস করেও ‘নায়ক’। দুটি গোল করার সঙ্গে সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন আরও দুই গোল।

রাশিয়া বিশ্বকাপের পর দেশের হয়ে এই প্রথম মাঠে নেমেছিলেন সালাহ। বিশ্বকাপে চোট নিয়ে মিসরের হয়ে তেমন ভালো করতে না পারলেও কাল কিন্তু সব আলো কেড়ে নিয়েছিলেন। যদিও শুরুটা ছিল একেবারে উল্টো। ৬০ সেকেন্ডের মাথায় পেনাল্টি পায় মিসর। কিন্তু স্পটকিক থেকে নাইজার গোলরক্ষককে সালাহ পরাস্ত করতে পারেননি। ১৩ মিনিট পরই শোধটা তুলে নেন। সতীর্থ মারওয়ান মহসিনকে দিয়ে গোল করিয়ে। কিছুক্ষণ পরই আয়মান আশরাফের গোলে জয়ের ব্যবধান ২-০ করে ফেলে মিসর। কিন্তু নাটক যেন আর গোল উৎসবের শেষ হয়নি তখনও।

ম্যাচের আধঘণ্টার মাথায় আবারও পেনাল্টি পায় মিসর। আবারও স্পটকিক নিতে আসেন সালাহ। নাইজার গোলরক্ষক এবারও লিভারপুল তারকাকে রুখে দেন। কিন্তু শেষ রক্ষা করতে পারেননি। পেনাল্টি রুখে দিলেও বলটা তিনি ‘ক্লিয়ার’ করতে পারেননি। ফিরতি বলে লক্ষ্যভেদ করেন সালাহ। এরপর সালাহ মোহসেনকে দিয়েও গোল করিয়েছেন ফিফা ‘বেষ্ট’-এর সংক্ষিপ্ত তিনজনের তালিকায় জায়গা করে নেওয়া এই মিসরীয় তারকা। হেডের মাধ্যমে তুলে নিয়েছেন নিজের দ্বিতীয় গোলটাও। মিসরের হয়ে ম্যাচের শেষ গোলটি মোহাম্মদ এলনেনির।

বিশ্বকাপের পর মিসরের কোচ পদ থেকে ছাঁটাই হন হেক্টর কুপার। তাঁর স্থলাভিষিক্ত হয়ে প্রথম ম্যাচেই বড় জয় তুলে নিলেন মেক্সিকান কোচ হ্যাভিয়ের আগুয়ের। সালাহ পেনাল্টি মিস না করলে কিন্তু জয়ের ব্যবধান আরও বড় হতো। কিন্তু বড় মাপের স্ট্রাইকারেরা পুষিয়ে দিতে জানেন, যেমনটা সালাহ! ফুটবল প্রেমীদের জন্য সেই ম্যাচে তা করেও দেখিয়েছেন তিনি।

মন্তব্য: