রবিবার দ্বাদশ আইপিএলের ফাইনালে চেন্নাই সুপার কিংসকে হারিয়ে চতুর্থ বারের মতো শিরোপা জিতেছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। এদিন মুম্বাইয়ের দেওয়ার ১৫০ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে নেমে ১৪৮ রানে শেষ হয় চেন্নাইয়ের ইনিংস। ফলে ১ রানের জয় পায় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।

এদিন চেন্নাই সুপার কিংস শিরোপা জিততে না পারলেও ব্যক্তি মাইলফলক স্পর্শ করেছেন চেন্নাইয়ের দুই ক্রিকোটার মহেন্দ্র সিং ধোনি ও হরভজন সিং।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে ১৫০ উইকেট পূর্ণ করলেন স্পিনার হরভজন সিং। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে হরভজন ছাড়া আর মাত্র দু-জন ভারতীয় ক্রিকেটারের ১৫০ উইকেট পাওয়ার নজির রয়েছে। দিল্লি ক্যাপিটালসের অমিত মিশ্রার রয়েছে ১৫৭ আইপিএল উইকেট। খেলেছেন ১৪৭ ম্যাচ।

এ ছাড়া কলকাতা নাইট রাইডার্সের পীযূষ চাওলার ১৫৭ ম্যাচে ১৫০ উইকেট রয়েছে। দ্বাদশ আইপিএল মৌসুমে ১০ ম্যাচে ১৬ উইকেট নিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে উইকেটের পেছনে আইপিএলের সবচেয়ে সফল উইকেটরক্ষক হিসেবে সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। কুইন্টন ডি’কক ও রোহিত শর্মার ক্যাচ ধরার সঙ্গে সঙ্গেই আইপিএলে সব থেকে বেশি উইকেট শিকার ধরার রেকর্ড গড়েন ধোনি ৷ তিনি টপকে যান কলকাতা নাইট রাইডার্স অধিনায়ক দীনেশ কার্তিককে৷ এটি তাঁর আইপিএল কেরিয়ারের ১৩২তম শিকার৷

যার মধ্যে ৯৪টি ক্যাচ ধরেন ধোনি৷ স্ট্যাম্প করেছেন ৩৮টি৷ ক্যাচ ও স্ট্যাম্প মিলিয়ে দীনেশ কার্তিকের আইপিএল শিকারের সংখ্যা ১৩১টি৷ এই তালিকার তিন নম্বরে রয়েছেন নাইট রাইডার্সের পার্টটাইম উইকেটকিপার রবিন উথাপ্পা৷ তিন ক্যাচ ও স্ট্যাম্প মিলিয়ে ৯০টি শিকার ধরেছেন৷

বিশেষজ্ঞ উইকেটকিপারদের মধ্যে এই তালিকার প্রথম দশে রয়েছেন পার্থিব প্যাটেল (৮২), নমন ওঝা (৭৫), ঋদ্ধিমান সাহা (৭৪), অ্যাডাম গিলক্রিস্ট (৬৭), কুমার সাঙ্গাকারা (৪৩), ঋষভ পান্ত (৪১)ও কুইন্টন ডি’কক (৩৩)৷

মন্তব্য: