ভারতে টেলিভিশন শো ‘কফি উইথ করনে’ নারীদের নিয়ে বাজে মন্তব্য করার কারণে হার্দিক পান্ডে ও লোকেশ রাহুলকে শোকজ করেছিল ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড। বুধবার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এই ক্রিকেটারদের কারণ দর্শানোর আদেশ দেওয়া হয়েছিল। এরপরই বিসিবির কাছে জবাব দিয়েছিলেন হার্দিক পান্ডে।

পান্ডে তার জবাবে বলেছেন, ‘আমি ওই চ্যাট শোয়ে হাজির হয়ে কিছু মন্তব্য করেছি। আমি বুঝতে পারিনি এই মন্তব্যে সংবেদনশীল দর্শকরা অসন্তুষ্ট হতে পারেন বা তাঁদের প্রতি অশ্রদ্ধা প্রদর্শন করা হতে পারে। আমি আশ্বস্ত করছি, আমার কোনও খারাপ উদ্দেশ্য ছিল না। আমি কাউকে অসম্মান করতে চাইনি বা সমাজের কোনও অংশকে খারাপভাবে তুলে ধরতে চাইনি। শো চলাকালীন ওই মন্তব্য করি। আমার ওই মন্তব্য খারাপভাবে দেখা হবে এটা ভাবিনি। বিসিসিআই-এর প্রতি আমার সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা আছে। ভবিষ্যতে এই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে না।’

যে বক্তব্য নিয়ে বিতর্ক ‘‌কফি উইথ করন’‌-এ গিয়ে একটি গল্প বলেছিলেন হার্দিক। একবার হার্দিক তাঁর মা-বাবার সঙ্গে একটি পার্টিতে গিয়েছিলেন। সেখানে একটি মেয়েকে দেখিয়ে হার্দিক তাঁর মা-বাবাকে বলেন। এই মেয়েটির সঙ্গে আমার সম্পর্ক রয়েছে। তারপরই হার্দিক বলেন, তিনি নাকি মা-বাবাকে বলেছিলেন, মেয়েটির সঙ্গে তাঁর শারীরিক সম্পর্ক রয়েছে। হার্দিকের এইসব মন্তব্য থেকেই পরিস্কার যে তিনি তাঁর নিয়ন্ত্রণে ছিলেন না।

এই ঘটনার পরই পান্ডে বুধবার তাঁর ই‌নস্টাগ্রাম এক পোস্টে লিখেছিলেন, ‘কফি উইথ করন এ আমার মন্তব্যের জন্য আমি দুঃখিত। আমি যদি কাউকে কষ্ট দিয়ে থাকি তার জন্য আমি ক্ষমা চাইছি। আমি কোনওভাবেই কারও আবেগ বা সম্মানকে আঘাত করতে চাইনি।’‌

এদিকে বিতর্কে জড়ানো হার্দিকের সঙ্গে লোকেশ রাহুলও ওই অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন। সেখানেই মহিলাদের সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করেন হার্দিক। তিনি এখন একদিনের সিরিজের জন্য ভারতীয় দলের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ায় আছেন। এই অলরাউন্ডার টিম ম্যানেজমেন্ট ও সতীর্থদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। ভারতীয় দলের প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রী ও সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গেও এ বিষয়ে কথা বলেছেন হার্দিক।

মন্তব্য: