উয়েফার বড় শাস্তির মুখে পড়লেন ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার। উয়েফা আধিকারিকদের বিরুদ্ধে অশব্য আচরণের কারণে তাঁকে শাস্তির মুখে পড়তে হচ্ছে। রেফারির বিরু্দ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ক্ষোভ উগরে দেন তিনি।

৬ মার্চ চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ম্যান ইউয়ের বিরুদ্ধে দলের করুণ আত্মসমর্পন চাক্ষুষ করেছিলেন ব্রাজিলের তারকা ফুটবলার নেইমার।নির্ধারিত সময় পর্যন্ত ওই ম্যাচে ঘরের মাঠে ১-২ গোলে পিছিয়ে ছিলেন বুঁফোরা। এই স্কোরলাইনে ম্যাচ শেষ হলেও অ্যাওয়ে ম্যাচে ২-০ গোলে জয়ের সুবাদে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে যেত পিএসজি।

কিন্তু ইনজুরি সময় ড্যালটের শট পেনাল্টি বক্সে এমবাপের হাতে লাগতেই সমীকরণ বদলে যায় ম্যাচের। ম্যান ইউয়ের আবেদনে সাড়া দিয়ে ভিএআরের সাহায্যে রেড ডেভিলসদের পেনাল্টি পুরস্কৃত করেন রেফারি। স্পট-কিক থেকে স্কোরলাইন ৩-১ করে দলকে শেষ আটে পৌঁছে দেন ম্যান ইউ স্ট্রাইকার রাশফোর্ড।

ওই ম্যাচে চোটের জন্য নেইমার খেলেননি। কিন্তু ম্যাচ নিয়ে সোশাল নেটওয়ার্কিং সাইটে রেফারি ও লাইন্সম্যানদের নিয়ে ছাপার অযোগ্য মন্তব্য করেন নেইমার। তার পরিপ্রেক্ষিতেই তাঁকে অভিযুক্ত করল উয়েফা।

রেফারিকে তিরস্কার করে নেইমার লেখেন, ‘এটা অন্যায়। উয়েফা চারজন এমন অফিসিয়ালদের ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্ব দিয়েছে, যাদের ফুটবল কিংবা ভিএআর সম্পর্কে ধারণা নেই। হাতের পিছনে বল এসে লাগলে কোন নিয়মে সেটা হ্যান্ডবল হয়?’ ইনস্টাগ্রামে প্রশ্ন তোলেন ব্রাজিলিয়ান।

৬ মার্চ ওই ঘটনার পর তদন্তে নামে উয়েফা। নেইমারের কৃতকর্মের কারণে নিয়োগ করা হয় একজন ইনভেস্টিগেট ইন্সপেক্টর। তাঁর তদন্তের ভিত্তিতেই শুক্রবার ব্রাজিলিয়ান তারকাকে অভিযুক্ত করল উয়েফা। শুনানির দিন এখনও জানানো হয়নি। মনে করা হচ্ছে নেইমারের কড়া শাস্তি হবে। মোটা টাকা জরিমানা এবং নির্বাসনের শাস্তি, দুটোই হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

মন্তব্য: