ওয়াংখেড়েতে পোলার্ড-ঝড়। যে ঝড়ের সামনে ম্লান হয়ে গেল ক্রিস গেল, কে এল রাহুলের দুরন্ত ইনিংস। মাত্র ৩১ বলে ৮৩ রানের অবিশ্বাস্য ইনিংস খেলে গেলেন এই ম্যাচে মুম্বাইকে নেতৃত্ব দেওয়া পোলার্ড। তাঁর ইনিংসে রয়েছে তিনটি চার, দশটি ছয়। কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের ১৯৭-৪ স্কোর শেষ বলে টপকে গেল মুম্বাই। পোলার্ডরা ম্যাচ জিতে নিলেন তিন উইকেটে।

রোহিতের ইনজুুরিতে মঙ্গলবার মুম্বাই দলের নেতৃত্ব দেন কায়রন পোলার্ড। টস জিতে অবশ্য প্রথমে পাঞ্জাবকে ব্যাট করতে পাঠান তিনি। ওয়াংখেড়েতে শুরুতেই গেইল-রাহুলের ঝড় তোলেন। ওপেনিং জুটিতে এল ১১৬ রান। ৩৬ বলে ৬৩ রান করলেন গেইল। আর অপরাজিত শতরান করলেন কেএল রাহুল। ৬৪ বলে ১০০ রান করেন তিনি। আইপিএল এটি তাঁর প্রথম শতরান। ৬টি চার ও ৬টি ছয়ে সাজানো রাহুলের ইনিংস। মূলত এই দুই ব্যাটসম্যানের কাঁধে ভর করেই ৪ উইকেট হারিয়ে ১৯৭ রান তোলে পাঞ্জাব। মুম্বাইয়ের হয়ে দুটি উইকেট নেন হার্দিক পাণ্ডিয়া।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৬ ওভারে মুম্বাই ৫০-১। ওপেন করতে নেমে সিদ্ধার্থ ল্যাড ১৫ রান করে আউট হয়ে যান। লড়াই চালাচ্ছে কুইন্ট ডি কক ও সূর্য কুমার যাদব। ২১ রান করে আউট হন সূর্যকুমার যাদব। ২৪ রান করে আউট হলেন কুইন্টন ডে কক।

লড়াই করছেন কেরন পোলার্ড ও হার্দিক পাণ্ড্যে। ১৪ ওভারে মুম্বাই ১২৮-৪। জিততে হলে মুম্বাইকে করতে হবে ৩৬ বলে ৭০ রান। ইশান কিষান ৭, হার্দিক পাণ্ড্যে ১৯ ও ক্রুনাল পাণ্ড্যে ১ রান কর আউট হয়ে যান। ১৬ ওভারে মুম্বই ১৪৪-৬।জিততে হলে ২৪ বলে করতে হবে ৫৪ রান।

কিরন পোলার্ডের দারুন লড়াই। শেষ ওভারে দরকার ১৫ রান। পোলার্ড শুরুই করেন নো বলে একটা ছয় মেরে। পরের বলে চার। চার বলে যখন চার রান বাকি, অঙ্কিত রাজপুতের বলে বাউন্ডারিতে ধরা পড়েন পোলার্ড। পরের চার বলে রুদ্ধশ্বাস নাটক। শেষ পর্যন্ত অঙ্ক দাঁড়ায় এক বলে দুই রান। আলজ়ারি জোসেফ স্ট্রেট ড্রাইভ মেরে সেই দুই রান।

মন্তব্য: