কোপা আমেরিকার আয়োজক দেশ হয়ে ব্রাজিল কখনোই শিরোপা হাতছাড়া করেনি। আর অপরদিকে পেরু কখনো ফাইনালে উঠে হারেনি। তাইতো যে দলই চ্যাম্পিয়ন হোক না কেন একটা রেকর্ড ভাঙবেই।

বাংলাদেশ সময় আজ রাত ২ টায় ব্রাজিলের মারকানায় মুখোমুখি হবে স্বাগতিক ব্রাজিল ও পেরু। দক্ষিণ আমেরিকার এই ফুটবল টুর্নামেন্টে ব্রাজিল চ্যাম্পিয়ন ৮ বার, পেরু ২ বার। আঞ্চলিক এই প্রতিযোগিতা যখন কোপা আমেরিকা নাম দিয়ে শুরু হয় সেই প্রথম আসরেই (১৯৭৫) বাজিমাত করেছিল পেরু। সেটি ছিল তাদের দ্বিতীয়বার চ্যাম্পিয়ন হওয়া। তারপর পেরু আর কখনো ফাইনালেই উঠতে পারেনি। ৪৪ বছর পর ফের ফাইনালে উঠে তারা প্রতিপক্ষ পেয়েছে স্বাগতিক ব্রাজিলকে। তৃতীয়বার চ্যাম্পিয়ন হওয়া তাই পেরুর জন্য কঠিন এক চ্যালেঞ্জ।

খাতা কলমের হিসেব বা মাঠের খেলায় পরিষ্কারভাবে পেরুর চেয়ে এগিয়ে ব্রাজিল। গ্রুপ পর্ব থেকে শুরু করে ফাইনালে পা রাখা পর্যন্ত তিতের দল দেখিয়েছে তাদের শক্তিমত্তা। গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে পেরুকে তো উড়িয়ে দিয়েছিল ৫-০ গোলে। ফলে ফাইনালে সেই পেরুকে পেয়েই আত্মবিশ্বাসে টগবগে হয়ে আছে দানি আলভেজ, জেসুসরা। টুর্নামেন্টে ব্রাজিলের দ্রুত গতির ফুটবলের সঙ্গে নিখাদ বলের নিয়ন্ত্রণ, বিল্ড আপ ফুটবলে পাসের পর পাস খেলে মালা গাঁথা ও বৈচিত্রময় আক্রমণ দর্শকদের মন কেড়ে নিয়েছে। জেসুস, কুতিনহো, এভারটনদের সামনে পেরুর রক্ষণভাগ তাসের ঘরের মতোই ভেঙে পড়বে বলে মনে করছেন বেশির ভাগ ফুটবল-বোদ্ধা।

ইনজুরির কারণে নেইমারের ছিটকে যাওয়ায় ব্রাজিল শিবিরে একটা হতাশা ছিল; কিন্তু যেসুস, ফিরমিনো আর ক্যাসেমিরোরা ছন্দে থাকায় অনেকটায় স্বস্তিতে দলের কোচ তিতে। আর পোস্টের নিচে অ্যালিসন তো এই কোপার সেরা গোলরক্ষক। যিনি এক মৌসুমে তিনটি গোল্ডেন গ্লাভস জিতে করতে যাচ্ছেন অনন্য রেকর্ড। তাই অনিশ্চয়তা শব্দটি বাদ দিলে কোপার ফাইনালে ব্রাজিলই ফেভারিট।

মন্তব্য: