বর্তমান সময়ের সর্বোচ্চ উপার্জনকারী ফুটবলারদের মধ্যে একজন ক্রিষ্টিয়ানো রোনালদো। অর্থ উপার্জনের পাশাপাশি মানবতার সেবায় দু’হাতে খরচ করেন এই পর্তুগিজ তারকা। দুস্থ মানবতা এবং শিশুদের সাহায্যে বরাবরই এগিয়ে আসেন তিনি। তেমনি ফের নতুন একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন তিনি। যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশ মুসলিম ফিলিস্তিনের ইফতারের জন্য ১.৫ মিলিয়ন ইউরো দিয়েছেন তিনি। যা বাংলাদেশি টাকায় দাঁড়ায় ১৪ কোটি ২০ লাখ ২৪ হাজার টাকা।

পবিত্র মাহে রমজান মাসে আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য দীর্ঘ ৩০ দিন রোজা রেখে থাকেন সারা বিশ্বের মুসলমানরা। যদিও রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে ফিলিস্তিনের অনেক মানুষ ঠিকমতো সেহরী-ইফতারও করতে পারছেন না। প্রতিনিয়ত তাদের ওপর হামলা করে যাচ্ছে ইসরায়েল। তাদের কষ্টটা কিছুটা ভাগ নিতেই এই অর্থ দান করলেন পর্তুগীজ তারকা।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে জানা যায়, ইসরায়েলের হামলায় বিপর্যস্ত গাজার অসহায় মুসলমানদের ইফতারির জন্য দেড় মিলিয়ন ইউরো দান করেছেন রোনালদো। ওই টাকায় গাজার মুসলমানদের ইফতারি করানো হচ্ছে।

এর আগে ২০১২ সালে নিজের গোল্ডেন বুট নিলামে তুলে প্রাপ্ত অর্থ ফিলিস্তিনিদের দান করে দিয়েছিলেন জুভেন্টাস সুপারস্টার। এরপর ২০১৩ সালে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচে ইসরায়েল খেলোয়াড়ের সঙ্গে জার্সি বদলে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন সিআর সেভেন। তখন ওই ঘটনা নিয়ে খুব আলোচনা হয়েছিল।

মন্তব্য: