এজবাস্টন টেস্ট স্মিথের ব্যাটে ভর করেই বড় জয় পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। যার স্বীকৃতি স্বরূপ ম্যাচ সেরার পুরস্কার ওঠে তার হাতে। এবার আইসিসি তরফ থেকে দেওয়া হলো স্বীকৃতি। নতুন টেস্ট রেঙ্কিং এক ধাপ উন্নতি হয়ে সেরা তিনে উঠে এসেছেন স্মিথ।

এজবাস্টন টেস্টের দুই ইনিংসের সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন স্মিথ। দুই ইনিংসে যথাক্রমে ১৪৪ ও ১৪২ রান করেছেন তিনি। আর দুটি সেঞ্চুরি এসেছে দলের কঠিন সময়ে। ১৬ মাস পর টেস্ট এমন রাজকীয় প্রত্যবর্তনের সব কালিমা পাঁচ দিনেই যেন মুছে ফেলেছেন তিনি।

টেস্ট শুরুর আগে ৮৫৭ পয়েন্ট নিয়ে র্যাঙ্কিংয়ে চার নম্বর অবস্থানে ছিলেন তিনি। তবে একটি টেস্ট খেলেই সংগ্রহ করে নিলেন আরও ৪৬ পয়েন্ট৷ ফলে ৯০ ‘র অধিক পয়েন্ট নিয়ে ভারতের চেতেশ্বর পূজারাকে পিছনে ফেলে দিয়ে স্মিথ (৯০৩) এই মুহূর্তে আইসিসি’র তিন নম্বর টেস্ট ব্যাটসম্যানের মুকুট মাথায় পরলেন৷

স্মিথ ছাড়া ৯০০ রেটিং পয়েন্টের উপরে রয়েছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও নিউজিল্যান্ড দলনায়ক কেন উইলিয়ামসন৷ ৯২২ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে কোহলি যথারীতি টেস্ট ব়্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছেন৷ ৯১৩ পয়েন্ট নিয়ে উইলিয়ামসন ধরে রেখেছেন দ্বিতীয় স্থান৷

স্মিথ ব্যক্তিগত ব়্যাংকিংয়ে উন্নতি করলেও এক ধাপ পিছিয়ে গিয়েছেন ডেভিড ওয়ার্নার৷ ওয়ার্নাকে ৭ নম্বরে ঠেলে দিয়ে ইংল্যান্ড অধিনায়র জো রুট উঠে এসেছেন ৬ নম্বরে৷ পাঁচে রয়েছেন হেনরি নিকোলস৷ প্রথম দশের শেষ তিনটি জায়গায় রয়েছেন এডেন মার্করাম, কুইন্টন ডি’কক ও ফ্যাফ ডু’প্লেসি৷

বোলারদের ৭ উইকেট নিয়ে শীর্ষস্থান মজবুত করেছেন প্যাট কামিন্স। ব়্যাংকিংয়ে কেরিয়ারের সেরা ৮৯৮ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছেন তিনি। যা গত ৫০ বছরে গ্লেন ম্যাকগ্রা ও শেন ওয়ার্নের পর কোনো অস্ট্রেলিয়ান বোলারের তৃতীয় সেরা। কামিন্সের পরের দুই অবস্খানে আছেন রাবাদা ও জেমন্স অ্যান্ডারসন।

ম্যাচে ৯ উইকেট নিয়ে অস্ট্রেলিয়ান স্পিনার নাথান লায়ন বোলারদের র্যাঙ্কিংয়ে ছয় ধাপ এগিয়েছেন, আছেন ১৩তম স্থানে।

এই ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করা ইংলিশ পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড দুই ধাপ এগিয়েছেন, আছেন ১৬তম স্থানে।

মন্তব্য: