বিশ্বকাপের পরেই যেনো অঘোষিত অবসরে রয়েছেন ধোনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে এবং টি-২০ সিরিজ থেকে নাম প্রত্যাহারের পর প্রোটিয়াদের বিপক্ষেও টি-টোয়েন্টি সিরিজের দলে তাকে রাখেনি ভারতীয় দলের নির্বাচকরা ধোনি। এখন শোনা যাচ্ছে আগামী নভেশ্বরে ভারতের মাটিতে বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজেও খেলবেন না তিনি।

নভেম্বরে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে ভারত সফরে যাবে বাংলাদেশ দল। টেস্ট ক্রিকেটে আগেই অবসর নেওয়া ধোনি বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজেও দলে না ফেরার কথা জানিয়েছেন। তবে নির্দিষ্ট করে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজের কথা বলেননি তিনি। জানিয়েছেন ক্রিকেট থেকে নিজের বিরতিটা আরও লম্বা করার ইচ্ছা রয়েছে তার। যা আগামী নভেম্বরের আগে শেষ হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

সূচি অনুযায়ী, আগামী ৩ নভেম্বরে ভারতে প্রথম টি-২০ ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-২০ ম্যাচে বাংলাদেশ ১০ নভেম্বর ভারতের মুখোমুখি হবে। এরপর ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হবে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ।

ধোনির অবসর নিয়ে সুনীল গাভাস্কার বলেন, ‘ধোনির মনে কি চলছে তা কেবল ধোনিই বলতে পারবে। একমাত্র ধোনিই পারে তার অবসরের বিষয়টি পরিষ্কার করতে। তবে তার বয়স হয়ে গেছে ৩৮ বছর। ভারতীয় বোর্ডের উচিত এখন সামনে তাকানো। দলে তার ভূমিকা সবসময়ই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে নয়। উইকেটরক্ষক হিসেবেও। কিন্তু আগামী বিশ্বকাপ আসতে আসতে তার বয়স হয়ে যাবে ৩৯ বছর। সেটা মাথায় রাখতে হবে।’

বাংলাদেশের পর ডিসেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে ভারত। এরপর আগামী জানুয়ারিতে জিম্বাবুয়ে ও অস্ট্রেলিয়াকে নিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবে। এখন ধোনির ভালো জানেন তার মাঠে ফেরার পরিকল্পনা?

মন্তব্য: