দিল্লির অনূর্ধ্ব-২৩ দলে বাছাইকৃত দলে সুযোগ না পাওয়া এক ক্রিকেটারের আক্রমণের শিকার হয়েছেন দিল্লি ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান তথা প্রাক্তন টেস্ট ক্রিকেটার অমিত ভাণ্ডারী। ঘটনায় অভিযুক্ত দুই জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ভারতীয় গণমাধ্যমের সূত্র থেকে জানা গেছে, সোমবার দিল্লির সেন্ট স্টিফেন্স মাঠে দিল্লি সিনিয়র ক্রিকেট টিমের অনুশীলন চলার সময় আচমকা ভাণ্ডারীর উপর সদলবলে ঝাঁপিয়ে পড়ে বাছাই তালিকায় স্থান না পাওয়া অনূর্ধ্ব ২৩ ক্রিকেটার অনুজ ধেড়া। আক্রমণের জেরে মাথায় ও পায়ে চোট পান ভাণ্ডারী। এরপর তাঁকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

এদিকে এই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী দিল্লি অনূর্ধ্ব-২৩ দলের ম্যানেজার শঙ্কর সাইনি। তিনি বলেছেন, ‘অনূর্ধ্ব-২৩ দলের একটি ম্যাচ দেখছিলেন ভান্ডারি। ওই সময় দু’জন লোক এসে ভান্ডারির সঙ্গে কথা কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়ে। এর পরে ওই দু’জন বেরিয়ে যায়। কিন্তু তার কয়েক মিনিট কয়েক পর জনা পনেরো লোক হকি স্টিক, সাইকেলের চেন হাতে নিয়ে ভান্ডারির ওপর হামলা চালায়।’

দিল্লি পুলিশের ডিসিপি জানিয়েছেন, ‘অভিযোগের ভিত্তিতে ধৃত অনুজ ও তার ভাই নরেশকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

জানা গিয়েছে, ডিডিসিএ-র প্রাথমিক ৭৯ জনের তালিকায় ধেড়ার নাম থাকলেও গত নভেম্বর মাসে ট্রায়ালের পরে সে চূড়ান্ত দল থেকে বাদ পড়ে। পিটিআই জানিয়েছে, জন্ম তারিখ ২২ নভেম্বর, ১৯৯৫ হওয়ার কারণেই বয়সসীমা পেরিয়ে যাওয়ায় ধেড়াকে দল থেকে বাদ দেওয়া হয়।

অমিত ভাণ্ডারীর উপর আক্রমণের তীব্র সমালোচনা করে টুইট করেন জাতীয় দলের অবসরপ্রাপ্ত ওপেনার বীরেন্দ্র শেভাগ। দোষীদের কড়া শাস্তির জন্য তিনি টুইটারে আবেদন জানিয়েছেন।

দিল্লি ক্রিকেটে এই ধরনের ঘটনা অবশ্য নতুন নয়। কিছুদিন আগেই অনূর্ধ্ব-১৬ দলে এক ক্রিকেটারকে না নেওয়ায় নির্বাচকদের আগ্নেয়াস্ত্র উঁচিয়ে হুমকি দেওয়া হয়েছিল।

মন্তব্য: