মেসির পায়ে ভর করেই লা লিগার দ্বিতীয় স্থানে থাকা অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের থেকে দশ পয়েন্টের ব্যবধান তৈরি করে লিগ টপার বার্সেলোনা৷ রবিবার রাতে রিয়াল বেটিসের মেসির হ্যাটট্রিকে ৪-১ গোলের বড় জয় পেল বার্সেলোনা।চোট পাওয়ার আগে দলের হয়ে একটি গোল করে যান সুয়ারেজ৷ রিয়াল বেটিসের হয়ে একটি গোল শোধ করেন লরেন মোরোন৷ এই ম্যাচে মেসির নতুন রেকর্ড গড়ার সঙ্গে ছুঁলেন আরও একটি ক্লাব রেকর্ড৷

ম্যাচের ১৮ মিনিটে ফ্রি-কিক থেকে গোল করে বার্সাকে ১-০ এগিয়ে দেন মেসি৷ প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে (৪৫+২) সুয়ারেজের পাস থেকে গোল করে স্কোরলাইন ২-০ করেন মেসি৷ ৬৩ মিনিটে পিকের পাস থেকে গোল করে বার্সাকে ৩-০ গোলে এগিয়ে দেন সুয়ারেজ৷ ৮২ মিনিটে লরেন গোল করে বেটিসের ব্যবধান কমিয়ে ৩-১ করেন৷ ৮৫ মিনিটে রাকিটিচের পাস থেকে গোল করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করার পাশাপাশি ম্যাচের স্কোরলাইন ৪-১ করেন মেসি৷

২৮ রাউন্ডের শেষে বার্সেলোনার পয়েন্ট সংখ্যা ৬৬৷ অ্যাটলেটিকো দাঁড়িয়ে ৫৬ পয়েন্টে৷ তৃতীয় স্থানে থাকা রিয়ালের সংগ্রহ ৫৪ পয়েন্ট৷

মাঠে নামার মুহূর্তে মেসি বার্সেলোনার সর্বকালীন একটি রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলেন৷ বার্সার জার্সিতে এটি তাঁর ৬৭৪ নম্বর ম্যাচে৷ এই নিরিখে তিনি ছুঁয়ে ফেলেন কিংবদন্তি ইনিয়েস্তাকে৷ মেসির মতো তিনিও বার্সেলোনার হয়ে ৬৭৪টি ম্যাচ খেলেছেন৷ সামনে শুধু জাভি৷ যিনি বার্সার হয়ে ৭৬৭টি ম্যাচ খেলেছেন৷

ম্যাচের শেষে মেসি ভেঙে দেন জাভির অন্য একটি রেকর্ড৷ বার্সেলোনার হয়ে মেসির এটি ৪৭৭ নম্বর ম্যাচ জয়৷ ক্লাবের জার্সিতে জাভি জিতেছেন ৪৭৬টি ম্যাচ৷ এই তালিকার তৃতীয় স্থানে রয়েছেন ইনিয়েস্তা৷ তিনি বার্সেলোনার হয়ে ৪৫৯টি ম্যাচ জিতেছেন৷

রিয়াল বেটিসের বিরুদ্ধে হ্যাটট্রিকের সুবাদে লা লিগায় মেসির গোলসংখ্যা দাঁড়াল ৪১২৷ এটিও একটি নতুন রেকর্ড৷ জিমি ম্যাকগ্রোরি ১৯২২-১৯৩৭ পর্যন্ত স্কটিশ লিগে ৪১০টি গোল করেন৷ ১৯০৫-১৯২৮ পর্যন্ত ইমরে স্লোসার হাঙ্গেরিয়ান লিগে ৪১১টি গোল করেন৷ ২০০৪-২০১৯ পর্যন্ত সময়ে স্প্যানিশ লিগে গোল করার নিরিখে মেসি স্থাপণ করেন অনবদ্য মাইলস্টোন৷

একা মেসি নন, এই ম্যাচে মাইলস্টোন ছুঁয়েছেন সুয়ারেজও৷ রিয়াল বেটিসের জালে বল জড়িয়ে সুয়ারেজ ছুঁয়ে ফেলেন দিয়েগো ফোরনালকে৷ লা লিগায় কোনও উরুগুয়েন তারকার সর্বোচ্চ গোল করার নজির এখন এই দু’জনেরই৷

মন্তব্য: