চিটাগং ভাইকিংসের দিনকাল মোটেও ভালো যাচ্ছে না। এতদিন বিপিএল শাসন করে এসে কিনা নিজের ঘরের মাঠই তাদের জন্য সাপেবর হয়ে দেখা দিলো! শুক্রবারে রংপুর রাইডার্সের কাছে ৭৪ রানের বিশাল ব্যবধানে হার। আর আজ আবার মোটামুটি পুচকে রাজশাহী কিংস হারিয়ে দিলো চিটাগংকে তাদের ঘরের মাঠেই।

বিপিএলের চতুর্থ পর্বে শনিবার দ্বিতীয় দিনে চট্টগ্রামে নিজেদের দ্বিতীয় দিনে টস জিতে প্রতিপক্ষ রাজশাহী কিংসকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় তারা। যে ভুলটি তারা করেছিল শুক্রবার রংপুরের বিপক্ষেও।

ব্যাটিং করতে নেমে রাজশাহী কিংসের জনসন চার্লস আর সৌম্য সরকার গড়ে তোলেন ৫০ রানের জুটি। ৫০ রানের মাথায় সৌম্য ২০ বলে ২৬ রানের ইনিংস খেলে আউট হয়ে যায়। এই আসরের প্রথম ম্যাচ খেলতে মাঠে নামা ওপেনার জনসন ওয়ান ডাউনে নামা লরি ইভানসকে সঙ্গে নিয়ে ৭০ রানের জুটি গড়েন। ৪৩ বলে ৫ চার আর ২ ছয়ের দৃষ্টিনন্দন খেলায় নিজের প্রথম ম্যাচেই ৫৫ রান করেন জনসন।

লরি ইভানস ২৯ বলে ৩৬, রায়ান টেন ডেসকাট ১২ বলে ২৭ আর শেষদিকে ক্রিস্টিয়ান জঙ্কারের ১৭ বলে ৩৭ রান রাজশাহী কিংসকে ৫ উইকেটে পৌঁছে দেয় ১৯৮ রানে।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে চিটাগং প্রথম উইকেট হারায় ৩১ রানে। ডেলপোর্ট ৮ বলে ৭ রান করে আউট হন রাজশাহীর হয়ে প্রথম ব্রেকথ্রু এনে দেয়া মোস্তাফিজের বলে। কিন্তু আরেক ওপেনার মোহাম্মদ শাহাজাদের ২২ বলে ৪৯ রানের বিধ্বংসী ইনিংস তেমন একটা আঁচড় ফেলতে দেয়নি চিটাগংয়ের ইনিংসে।

চিটাগংয়ের হয়ে ২ নম্বরে ব্যাট করতে আসা ইয়াসির আলীও রানের ধারা অব্যাহত রাখেন। তার ৩৮ বলে ৫৮ রানের ঝকঝকে ইনিংস সাজানো ছিল ৭ টি বাউন্ডারি আর দুইটি ছক্কায়। তবে শাহাজাদ ও ইয়াসিরের আউটের পর তেমন কেউ দাঁড়াতে পারেনি চিটাগংয়ের হয়ে। বৃথা যায় মুশফিকের ২০ বলে ২২ ও সিকান্দার রাজার ১৫ বলে ২৯ রানের আরেকটি ঝড় তোলা ইনিংসও।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ১৩ রান তুলতে পারেননি চিটাগংয়ের ব্যাটসম্যানরা। শেষ ওভারে মুস্তাফিজ মাত্র ৫ রান দেন সাথে তুলে নেন ২ উইকেট। রাজশাহী কিংস ৭ রানে জয় পায়।

রাজশাহী কিংসের হয়ে মোস্তাফিজ ৩টি উইকেট লাভ করেন। মিরাজ ও রাব্বি ২ টি করে এবং আরাফাত সানি ১ টি উইকেট পান।

তবে চিটাগং ভাইকিংস ৯ ম্যাচ খেলে ৬ জয় নিয়ে টেবিলের প্রথম অবস্থানেই রয়েছে। অন্যদিকে আজ দুপুরে খুলনাকে হারিয়ে সিলেট রাজশাহীকে টপকে ৫ নম্বরে উঠে এলেও রাজশাহী তার জায়গা ফের দখল করে ১০ জয় নিয়ে টেবিলের পঞ্চম অবস্থানে।

চিটাগং ভাইকিংস
মোহাম্মদ শাহজাদ, ইয়াসির আলী রাব্বি, সিকান্দার রাজা, মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক), নজিবুল্লাহ জাদরান, নাঈম হাসান, ক্যামেরন ডেলপোর্ট, রবিউল হক, আবু জায়েদ রাহি, খালেদ আহমেদ।

রাজশাহী কিংস
লরি ইভানস, মেহেদী মিরাজ (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, মুমিনুল হক, ফজলে মাহমুদ, জনসন চার্লস, ক্রিস্টিয়ান জঙ্কার, রায়ান টেন ডেসকাটে, মোস্তাফিজুর রহমান, আরাফাত সানি ও কামরুল ইসলাম।

মন্তব্য: