তুরস্কের জাতীয় দল ও বার্সার মিডফিল্ডার আর্দা তুরানের অভিযোগ ছিলে নাইট ক্লাবে এক গায়কের সঙ্গে মারামারির পর হাসপাতালে গিয়েও গুলি ছোড়ার। এক বছর আগের সেই ঘটনায় দোষী প্রামানীত হয় তুরস্ক আদালত এই ফুটবলারকে ৩২ মাসের কারাদন্ড দিয়েছে।

গত বছর ইস্তানবুলের একটি নাইটক্লাবে পপস্টার বার্কে শাহিনের সঙ্গে মারামারিতে জড়িয়ে পড়েছিলেন তুরান। এমনকি ঘুষি মেরে ওই গায়কের নাক ভেঙে দেন এই ফুটবলার। শাহিন হাসপাতালে গেলে সেখানেও পিছু নেন তুরান। হাসপাতালে গিয়ে শাহিনের স্ত্রী ওজলেম আদা সাহিনকে উদ্দেশ্য করে ফ্লোরে গুলি ছোঁড়েন।

এই ঘটনার জেরে তুরানের বিরুদ্ধে ভীতি ছড়ানোয়, অবৈধভাবে সঙ্গে অস্ত্র রাখা ও শাহিনের স্ত্রীকে তুরান যৌন নিগ্রহ করেছেন বলেও অভিযোগ করা হয়। তবে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ থেকৈ রেহাই পেলেও এড়াতে পারেননি ভীতি ছড়ানো ও অবৈধ অস্ত্র রাখার অভিযোগ। আদালত এই দুইটি বিষয়ে তুরানকে তাকে ৩২ মাসের কারাদন্ডের পাশাপশি ৪ লাখ মার্কিন ডলার জরিমানা করে।

তবে আদালত রায ঘোষণার পাশাপাশি শর্ত দিয়েছে আগামী ৫ বছরের মধ্যে তুরান ফের কোনও অপরাধমূলক কাজে জড়িয়ে পড়ে দোষী সাব্যস্ত হলে তবেই তাকে হাজতবাস করতে হবে।

২০১৫ সালে ৩৪ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ থেকে বার্সায় যোগ দিয়েছিলেন তুরান। বার্সার জার্সি গায়ে ৫৫ ম্যাচে ১৫ গোল করার পাশাপাশি ৪টি ট্রফিও জেতেন তুরস্কের এই ফুটবলার। এরপর ২০১৭-১৮ মৌসুমে বার্সেলোনা থেকে লোনে তুর্কি ক্লাবে যোগ দেন তিনি।

মন্তব্য: