কথায় আছে অপেক্ষার সময় যেন ফুরায় না। আর সেই অপেক্ষাটি যদি হয় প্রিয় মানুষ বা প্রিয় কোন মুর্হূতের তাহলেতো এই সময় হয়ে যায় র্দীঘ থেকে র্দীঘতম। এমন ফাইনাল যে আসে ধুমকেতুর মতো দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর।

রাত পোহালেই রিও ডি জেনেইরোর মারাকানা স্টেডিয়ামের বুক চিড়ে দাপিয়ে বেড়াবেন চির দুই প্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা অর্থ্যাৎ প্রিয় দুই ফুটবল তারকা নেইমার ও লিওনেল মেসি। প্রথম আন্তর্জাতিক ট্রফিতে চোখ রেখে মাঠে নামছেন নেইমার ও মেসি।

রোববার (১১ জুলাই) বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায় কোপা আমেরিকার এই মহাআকর্ষণীয় ফাইনাল সরাসরি সম্প্রচার করবে সনি টেন ২ ও সনি সিক্স।

ব্রাজিল এ নিয়ে টানা ২য় কোপার মিশনে নামছে। আর্জেন্টিনা প্রায় তিন দশক ধরে যখন আক্ষেপের সাগরে হাবুডুবু খাচ্ছে, তখন ব্রাজিল জিতেছে ৫টি কোপা ও ২টি বিশ্বকাপ।

১৯৯৩ সালের কোপার পর র্দীঘ ২৮ বছর আর কখনও কোনও শিরোপা ঘরে নিতে পারেনি আলবিসেলেস্তেরা। তবে আর্জেন্টিনার জন্য যতটা এই শিরোপা আকাঙ্ক্ষার, তার চেয়েও বহুগুণ আকাঙ্ক্ষার মেসির জন্য। দেশের জার্সিতে একটি ট্রফি যে তার শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করতে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এ লড়াইটা যে শুধুমাত্র দক্ষিণ আমেরিকার দুই ফুটবল পরাশক্তির মধ্যে নয়, তা স্পষ্ট। এই সময়ের অন্যতম সেরা দুই খেলোয়াড় মেসি ও নেইমারেরও লড়াই। এবারের আসরে মেসি উড়ছেন। গোল ও অ্যাসিস্টে সবার উপরে। ৪ গোল ও ৫ অ্যাসিস্ট। অন্যদিকে নেইমারও প্রত্যাশা পূরণ করেছেন ২টি গোল করে ও ৩টি করিয়ে।

এখন দেখার অপেক্ষা, এই মহারণ শেষে ট্রফি যায় কার হাতে।