অবশেষে ২০১৯ সালের ফুটবলের সর্বোচ্চ পুরস্কার অর্থাৎ বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার ‘দ্য বেস্ট ফিফা মেনস প্লেয়ার’ জিতেছেন আর্জেন্টিনা ফুটবল দলের প্রাণভ্রমরা লিওনেল মেসি।

ছবি: রয়টার্স

আরেক বিশ্বসেরা জুভেন্টাসের পর্তুগিজ ফুটবলার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও লিভারপুলের ডাচ ফুটবলার ভার্জিল ফন ডাইককে পেছনে ফেলে ষষ্ঠবারের মতো এই পুরস্কার জিতলেন বার্সেলোনার সর্বকালের সেরা এই ফুটবলার। সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) মিলানে অপেরা হাউজ লা স্কালায় ‘দ্য বেস্ট ফিফা ফুটবল অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানে বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হয়।

৩১ জুলাই, গত মৌসুমে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের মধ্যে পুরুষ বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচনে ১০ জনের নামের তালিকা প্রকাশ করেছিল ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা ফিফা। তা থেকে গত ২ সেপ্টেম্বর তিন জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করে ফিফা যাতে স্থান পান লিওনেল মেসি, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও ভার্জিল ফন ডাইক।

২০১৫ সালে পঞ্চমবারের মতো ফিফার দ্য বেস্ট ফুটবলার হন মেসি। তারপর কখনো পরিস্থিতির শিকার আবার কখনো অফ ফর্মের কারণে ষষ্ঠ বারের খেতাবটি পাচ্ছিলেননা তিনি। এই সুযোগে ২০১৬ ও ১৭ সালে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো পর পর দুইবার এই শিরোপা অর্জন করে মেসির পাঁচ শিরোপাকে ছুঁয়ে ফেলেন।

ছবি: রয়টার্স

অনেকেই মনে করেন গত মৌসুমে ক্যারিয়ারের সেরা খেলেছেন মেসি। তার খেলায় যেন ফিরে এসেছিলো ১০ বছর আগের সেই মেসি। আর তাই এই আর্জেন্টাইনের খেলায় মুঘ্ধ হয়ে বিশ্বের প্রায় সব জাতীয় ফুটবল দলের কোচ, অধিনায়ক, নির্বাচিত সাংবাদিক ও সমর্থকদের চোখে এ মৌসুমের সেরা ফুটবলার হিসেবে মেসিই ছিলেন প্রথম পছন্দ। কাতালানদের হয়ে ৫০ ম্যাচ খেলে ৫১ টি গোল করেছেন মেসি। এবং টানা দশ মৌসুম কমপক্ষে ৪০ টি বা তার অধিক গোল করে অসাধারণ এক রেকর্ড গড়েছেন তিনি।

গত বছরটি রোনালদোর জন্যও খারাপ ছিলোনা। সিরি “আ” লিগে ২১ গোল করে লীগের সর্বোচ্চ গোলদাতা ছিলেন তিনিই। মোট ৪৩ ম্যাচ খেলে ২৮ গোল করেছেন এই সময়ের সেরাদের মধ্যে অন্যতম ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।

লিভারপুলের ইয়ুর্গেন ক্লপ নির্বাচিত হয়েছেন বর্ষসেরা কোচ। বর্ষসেরা পুরুষ গোলরক্ষক হয়েছেন অ্যালিসন বেকার আর সারি ফন ভিনেনডাল নির্বাচিত হয়েছেন বর্ষসেরা নারী গোলরক্ষক। সেরা নারী কোচ নির্বাচিত হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জিল এলিস।

মন্তব্য: