ঢাকা, খুলনা, রাজশাহী ও রংপুরের পর পঞ্চম ফ্রাঞ্চিাইজি দল হিসেবে বুধবার (২১ আগস্ট) বিকেলে বিসিবি কার্যালয়ে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সঙ্গে আলোচনা বসেছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ফ্রাঞ্চিাইজি। বাকি দলগুলোর মতো তারাও পুরনো নিয়মেই বিপিএল আয়োজনে মত দিয়ে এসেছে।

শুধু তাই নয় কুমিল্লা ফ্রাঞ্চাইজির স্বত্ত্বাধিকারী নাফিসা কামাল বিপিএলের লভ্যাংশের জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন। তাদের কাছে বিপিএল লস প্রজেক্ট! আসন্ন অসরটিতেও যদি তাদের লসের পাল্লা ভারী হয় তাহলে অষ্টম আসর থেকে তারা আর বিপিএলে অংশ নেবেন না বলে জানিয়ে দেন তিনি।

ঘন্টা দেড়েকের বৈঠক শেষে নাফিসা কামাল বলেন, ‘আমাদের পয়েন্ট হলো যদি গত আসরটিকে বিপিএলের ইতিহাসে সবচাইতে সফল বলা হয় তাহলে আমি কেন সেই মডেলটি বদলে নতুন মডেল তৈরি করবো? আমাদের বোর্ড সভাপতি জানিয়েছেন বিপিএলে কোনো নিয়ম পরিবর্তন করা হয়নি, হয় না। তো আমরা ওনার কথাকে সম্মান করেই সফল মডেলের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই।’

লভ্যাংশ দাবির বিষয়ে নাফিজা বলেন, ‘লভ্যাংশ নিয়ে আমরা প্রথমে আলোচনা করেছি। আমরা পুরোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি। আমি মালিক হিসেবে সবচাইতে পুরোনো। আমি সিলেটের সাথে ছিলাম। এখন পর্যন্ত আমরা ব্রেক ইভেনে আসতে পারিনি। কোন ফ্র্যাঞ্চাইজিই ব্রেক ইভেনে আসতে পারেনি। এটা আমাদের সবার জন্য লস প্রজেক্ট। আমি চিন্তা করছি আগামী বছর বিপিএলে থাকব কী না। এই অবস্থায় শুধুই লাভবান হচ্ছে বিসিবি। অবশ্যই আমরা লাভের অংশ হতে চাইব। আমরা অনেক বড় একটি স্টক হোল্ডার। এখানে পুরোপুরি ওয়ান সাইডেড টুর্নামেন্ট হচ্ছে। আমরা কিছুই পাচ্ছি না শুধু দিয়েই যাচ্ছি।’

নাফিসা কামাল মনে করেন, লাভের একটি নির্দিষ্ট অংশ বিসিবি থেকে পাওয়া গেলে কম বাজেটের দলগুলো ভালোমানের খেলোয়াড় নিতে আগ্রহী হবে এবং বিপিএলের মান আরও উচুঁতে যাবে। তিনি ধারণা দিয়েছেন, গ্রাউন্ড রাইটস কিংবা টিকিট রাইটসের অংশীদার করলেও ফ্র্যাঞ্চাইজিরা লাভবান হবে।

মন্তব্য: