এইতো কদিন আগেই মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বে পাকিস্তান সফরে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলে আসলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। টি টোয়েন্টি র্যাংকিংয়ে ১ নম্বরে থাকা পাকিস্তান দলের সাথে প্রথম ম্যাচে লড়াই করলেও পরবর্তী ম্যাচে দাঁড়াতেই পারেনি টাইগাররা। আর শেষ ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে গেছে। বিনিময়ে টি-টোয়েন্টির সিরিজে ধবলধোলাইয়ের লজ্জা নিয়ে পাকিস্তান ছাড়তে হয় তাদের।

তবে পাকিস্তান দল এবার দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশ দলকে ধবলধোলাইয়ের লজ্জায় ডুবাতে চায়। টি-টোয়েন্টির মতো টেস্ট সিরিজেও বাংলাদেশকে নাকানি চুবানি খাওয়ানোর তালে রয়েছে তারা। আর পাকিস্তানের জন্য সে লক্ষ্য পূরণ করা খুব একটা কঠিন হওয়ার কথা নয়। কারণ, গত ২-১ বছরে বাংলাদেশের টেস্ট পরিসংখ্যান দেখলে তা স্পষ্ট হয়ে ওঠে। এমনকি ২০১৯ সালে পুচকে আফগানিস্তানের কাছেও হেরে বসে টাইগাররা। আর বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য দুঃখের বিষয় সাকিব, মুশফিককে মিস করবে তারা। যার ফলে শক্তিশালী পাকিস্তানের বিরুদ্ধে টেস্টে ভালো কিছু করতে পারাটা যেন বাংলাদেশের জন্য অলৌকিক ব্যাপার বলেই মনে হচ্ছে।

পাকিস্তান দলের প্রধান কোচ ও প্রধান নির্বাচক মিসবাহ-উল হক জয়ের লক্ষ্য মাথায় রেখে শক্তিশালী দল ঘোষণা করেছেন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাঠে জেতা সর্বশেষ সিরিজের দলে খুব বেশি পরিবর্তন আনেননি সাবেক এই পাকিস্তানী ক্রিকেটার।

বাংলাদেশের বাঁহাতি ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল, মুমিনুল হক ও ইমরুল কায়েসদের কথা মাথায় রেখে দলে ফেরানো হয়েছে অফ স্পিনার বিলাল আসিফকে। আজ ঘোষণা করা ১৬ জনের টেস্ট দলে আসিফ এসেছেন অলরাউন্ডার কাশিফ ভাট্টির জায়গায়।

বিলাল আসিফকে দলে নেয়ার কারণ জানাতে গিয়ে মিসবাহ বলেন, ‘বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপের টপ ও মিডলঅর্ডারে বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের আধিক্যের কথা মাথায় রেখে আমরা বিলাল আসিফকে নিয়েছি। আর উসমান শিনওয়ারির জায়গায় ফাহিম আশরাফকে নেওয়া হয়েছে তার অলরাউন্ড সামর্থ্যের জন্য।’

বাংলাদেশের বিপক্ষে সবগুলো ম্যাচ জিতে পাকিস্তানকে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের শীর্ষ দুই দলের মাঝে রাখতে চেয়ে পাকিস্তান কোচ বলেন, ‘বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুটি ম্যাচ থেকে সর্বোচ্চ পয়েন্ট পেতে চাই আমরা। ২০২০-২১ টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ মৌসুমটা শীর্ষ দুইয়ের মধ্যে থেকে শেষ করতে চাই।’

দেখে নিন বাংলাদেশের বিপক্ষে ঘোষিত পাকিস্তানের টেস্ট দল: আজহার আলী (অধিনায়ক), আবিদ আলী, ইমাম-উল-হক, শান মাসুদ, বাবর আজম, আসাদ শফিক, হারিস সোহেল, ফাওয়াদ আলম, মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটকিপার), ইয়াসির শাহ, ইমরান খান, মোহাম্মদ আব্বাস, শাহীন আফ্রিদি, বিলাল আসিফ, নাসিম শাহ, ফাহিম আশরাফ।

মন্তব্য: