২০০৮ সালের প্রথম বছর থেকে প্রত্যেকটি আইপিএল-এ অংশ নিয়েছে আরসিবি। ২০০৯, ২০১১ ও ২০১৬-তে তিন-তিনবার ফাইনালেও উঠেছে তারা। তবু এখনও আইপিএল ট্রফি অধরাই থেকে গিয়েছে তাদের। অথচ প্রথম থেকেই বেশ শক্তিশালী দল গড়েছে তারা। দ্বাদশ সংস্করণ শুরু হওয়ার আগে অধিনায়ক বিরাট কোহলি মনে করছেন বেশ কিছু ভুল সিদ্ধান্তই তাদের ব্যর্থতার কারণ।

ব্যর্থতার বিরাট ব্যখ্যা

আইপিএল ২০১৯ শুরুর আগে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি জানান, বলতেই পারতেন বার বার আরসিবির ব্যর্থতার কারণ ‘দুর্ভাগ্য’। কিন্তু তাঁর মতে নিজের ভাগ্য নিজেকেই লিখে নিতে হয়। কাজেই ভাগ্য নয়, তিনি মনে করছেন অতীতে টুর্নামেন্টের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বাঁকে, বা বড় বড় ম্য়াচে বেশ কিছু ভুল সিদ্ধান্তের ফল ভুগতে হয়েছে তাঁদের। প্রতিপক্ষ তার ফায়দা লুটেছে।

কাছে এসেও হাতছাড়া

আইপিএল-এ দ্বিতীয়বারই তারা ফাইনালে উঠেছিল সেইবার হারতে হয় ডেকান চার্জার্সের (মালিকানা বদলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ) বিরুদ্ধে। ২০১১ সালের ফাইনালে আরসিবি দাঁড়াতেই পারেনি ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস-এর বিরুদ্ধে। আর ২০১৬ সালে কঠিন পরিস্থিতি থেকে ফাইনালে উঠলেও তাদের গ্রাস ছিনিয়ে নেয় ডেভিড ওয়ার্নারের সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

পরে কোহলি আরও জানান, এখনও ট্রফি না জিতলেও তাঁদের দলে পরবর্তি প্রজন্মকে তৈরি করার সংস্কৃতি তৈরি হয়েছে। জানিয়েছেন এখনকার ক্রিকেটাররা কয়েকবছর পর আর খেলবেন না। কোহিলি-এবিডি পরবর্তি যুগের জন্য এখন থেকেই চ্যালেঞ্জার্সদের তৈরি করছেন তাঁরা। ফলে আরসিবি দীর্ঘজীবী হবে।

এবারও শক্তিশালী

বরাবরের মতো এই বছর কোহলি-এবিডি ছাড়াও স্টইনিস , হেতমায়ার, ক্লাসেন, গ্র্যান্ডহোমি, মইন আলি, চাহাল, সাউদি, কুল্টার নাইল, উমেশ যাদবদের মতো বড় বড় ক্রিকেটারদের নিয়ে দল গড়েছে আরসিবি। এবার সব সিদ্ধান্ত সঠিক নিতে পারেন কিনা সেটাই দেখার।

মন্তব্য: