পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দলে জায়গা হয়নি মোহাম্মদ আমিরের। তবে বিশ্বকাপের আশা বাঁচিয়ে রেখেছিল ইংল্যান্ড সিরিজ। এই সিরিজের ভালো পারফর্মেন্স করে বিশ্বকাপ দলে জায়গা করে নেয়ার সুযোগ ছিল তার। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে স্কোয়াডে থাকা আমির। যে কারণে এখন চিকিৎসা নিতে হচ্ছে পাকিস্তানি এ পেসারকে।

ইংল্যান্ড সিরিজের প্রথম ম্যাচে সুযোগ পেয়েছিলেন আমির। কিন্তু বৃষ্টির কারণে ম্যাচটি বাতিল করা হয়। আর দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মাঠে দেখা যায়নি আমিরকে। পরে টিম ম্যানেজম্যান্টের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ভাইরাস সংক্রামণের কারণে দলে নেই আমির। পরে জানা যায় জলবসন্তে আক্রান্ত হয়েছেন তিনি। তাতে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতেও খেলতে পারছেন না এই গতিতারকা।

এদিকে কবে নাগাদ সুস্থ হয়ে দলে ফিরতে পারবেন সেটি এখনো নিশ্চিত নয়। সিরিজের শেষ দুই ওয়ানডে ১৭ ও ১৯ মে। এই দুই ম্যচেও আমিরের খেলাটা অনিশ্চিত। এদিকে প্রতিটি দলের স্কোয়াড চূড়ান্ত করার শেষ দিন ২৩ মে। তাই আমির যদি ইংল্যান্ডে বিপক্ষে কোনো ম্যাচে অংশ নিয়ে নিজেদের প্রমাণ করতে না পারেন তাহলে তার বিশ্বকাপে দল হয়তো আর জায়গা পাবেন না তিনি।

২০০৯ সালে আন্তজার্তিক অভিষেকের পর ২০১১ এবং ২০১৫ বিশ্বকাপে খেলতে পারেননি স্পট ফিক্সিংয়ে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ থাকায়। তবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে তার অগ্নি ঝড়া বোলিংয়ে শিরোপা ঢ়রে তুলেছিল পাকিস্তান। তবে এবার প্রথমবারের মতো সুযোগ ছিল আইসিসি সবচেয়ে বড় আসর ওয়ানডে বিশ্বকাপে অংশ নেওয়ার। তবে ফর্মহীনতার কারণে এবারের বিশ্বকাপেও হয়তো খেলা হচ্ছে না তার।

মন্তব্য: