সেমাবার টেন্ট ব্রিজে ইংল্যান্ডকে ১৪ রানে হারালো পাকিস্তান। এতে টানা ১১ ম্যাচ হারের পর জয়ের মুখ দেখলো তারা। ইংল্যান্ডের হয়ে রুট ও বাটলার সেঞ্চুরি করলেও তা জয় এনে দিতে পারেনি ইংলিশদের। ম্যাচ সেরা হয়েছেন মোহাম্মদ হাফিজ। চলতি আসরে দুই দলই দুই ম্যাচ খেলে একটি করে জয় পেলো।

পাকিস্তানের দেওয়া ৩৪৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে তৃতীয় ওভারেই জেসন রয়ের উইকেট হারায় ইংলিশরা। তবে দ্বিতীয় উইকেটে বোয়ারস্ট্রো ও রুট সেই ধাক্কা কাটিয়ে ওঠে। দলীয় ৬০ রানে বোয়ারস্ট্রো ৩২ রান নিয়ে ফিরে গেলেও চলতি বিশ্বকাপ আসরে প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নেন রুট।

১০৪ বলে ১০টি চার ও ১টি ছক্কায় ১০৭ রানে আউট হন রুট। শাদাপ খানের বলে রুট যখন বিদায় নেন তখন ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ছিল ২৪৮ রান। রুটের বিদায়ের আগে স্টোকস ১৩ ও মরগান ৯ রান করে বিদায় নেন।

রুট বিদায় নেওয়ার পর ইংল্যান্ডের হাল ধরেন বাটলার। তিনি এদিন ইংল্যান্ডের ক্রিকেট ইতিহাসে ৭৫ বলে দ্রুততম সেঞ্চুরি তুলে নেন। তবে সেঞ্চুরির পর তিনি ইনিংসটি আর বড় করতে পারেননি। দলীয় ২৮৮ রানে আমিরের বলে ১০৩ রানে বিদায় নেন তিনি।

বাটলারের বিদায়ের পর আর খেলার ফিরতে পারেনি ইংল্যান্ড। শেষ দিকে ক্রিস ওকস ১৪ বলে ২১ ও মইন ২০ বল থেকে ১৯ রান করে আউট হন। নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৯ উইকেটে ৩৩৪ রানে শেষ হয় ইংল্যান্ডের ইনিংস।

পাকিস্তানের হয়ে ওহাব রিয়াজ ৮২ রানে ৩টি উইকেট নেন। শাদাব খান ও আমির নেন ২টি করে উইকেট। এছাড়া হাফিজ ও মালিক ১টি করে উইকেট নেন।

মন্তব্য: