হাসান মাহমুদের ইনজুরির ধরনের বায়োমেকানিক্যাল এসেসমেন্টের জন্য আরব আমিরাত বা দক্ষিণ আফ্রিকায় পাঠানোর কথা ভাবছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিসিবির পক্ষে তার ইনজুরির ধরন ও সমস্যাগুলোর প্রতিকার যথাযথভাবে নিরুপণ করতে বেগ পেতে হচ্ছে।

গত মার্চে নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে পিঠের ইনজুরিতে পড়েন বাংলাদেশ দলের তরুণ ডানহাতি পেসার হাসান মাহমুদ। এরপর থেকে প্রায় ৫ মাসের বেশি সময় ধরে মাঠের বাইরে এ সম্ভাবনাময় পেসার। কিন্তু তার পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় তেমন উল্লেখযোগ্য উন্নতি দেখা যায়নি।

গতবছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ও চলতি বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেক হয়েছে ২১ বছর বয়সী হাসানের। কিন্তু পিঠের ইনজুরিতে পড়ে যাওয়ায় ৩ ওয়ানডে ও ১ টি-টোয়েন্টির বেশি খেলতে পারেননি তিনি।

হাসানের সবশেষ অবস্থা জানিয়েছে বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী ক্রিকেটভিত্তিক ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে বলেছেন, ‘সে লম্বা সময় ধরে আমাদের পর্যবেক্ষণে রয়েছে। আমরা বিভিন্ন সময়ে নানান উপায়ে তার পরীক্ষা করেছি। কিন্তু স্ক্যানের রিপোর্টে কোনো সমস্যা খুঁজে পাচ্ছি না আমরা।’

তাই তাকে বাইরে পাঠানোর ভাবনার কথা জানিয়ে দেবাশীষ আরও বলেন, ‘আমাদের মনে হয়, তার একটা থ্রি-ডি বায়োমেকানিক্যাল এসেসমেন্ট প্রয়োজন। যা আমাদের বুঝতে সাহায্য করবে তার বোলিং অ্যাকশনে সমস্যা আছে কি না। এই এসেসমেন্ট আমাদের দেশে নেই। তাই তাকে বিদেশে পাঠানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।’