চলছে ঘরোয়া লীগের সব চেয়ে জনপ্রিয় ক্রিকেট আসর ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। আর এই আসরে বাংলাদেশের একমাত্র ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ইতোমধ্যে খেলেছে পাঁচটি ম্যাচ।

শনিবার রাতে আসরে নিজেদের পঞ্চম ম্যাচে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের কাছে ৪০ রানের বড় ব্যবধানে হেরেছে হয়দরাবাদ। হয়দরাবাদ শিবির মাত্র ৯৭ রানে অলআউট হয়ে যায়। এই ম্যাচেও ছিলেন না সাকিব।

চলতি আইপিএল আসরে হয়দরাবাদের হয়ে মাত্র একটি ম্যাচের একাদশে জায়গা পেয়েছিলেন সাকিব। সেই ম্যাচটিতে প্রথম ওভারে এসেই পেয়েছিলেন উইকেটের দেখা। তবে শেষ অবধি ৩.৪ ওভার বোলিং করে দিয়েছিলেন ৪২ রান। এরপর আরও ৪টি ম্যাচ খেললেও একাদশে জায়গা হয়নি সাকিবের।

গত আসরে ব্যাট-বলে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সই উপহার দিয়েছিলেন সাকিব। যে কারণে ১২তম আসরে বাংলাদেশ টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের এই অধিনায়ককে ধরে রাখে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের জার্সিতে গেল আসরে ১৭ ম্যাচে সাকিব আল হাসান ব্যাট হাতে ১২১ স্ট্রাইকরেটে করেছিলেন ২৩৯ রান। আর বল হাতে ঝুলিতে পুরেছিলেন ১৪টি উইকেট।

তবে, চলমান আসরে ভিন্ন চিত্রই দেখা যাচ্ছে। সানরাইজার্স ইতোমধ্যে খেলেছে পাঁচটি ম্যাচ। তবে সাকিব মাঠে নেমেছেন মাত্র একটিতে। প্রথম ম্যাচে মাঠে নেমে দলকে জেতাতে পারেননি তিনি। তার বোলিং থেকেই প্রতিপক্ষ বের করে নিয়ে যায় জয়।

এদিকে, আইপিএলের কারণে হচ্ছে না বিশ্বকাপের প্রস্তুতিও। তাই তো তাকে দেশে ফিরিয়ে আনার কথা ভাবছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘বিশ্বকাপ যেহেতু ৫০ ওভারের তাই টি-টোয়েন্টির সঙ্গে এর বড় পার্থক্য। তবে আইপিএলে ও যদি খেলার মধ্যে থাকত, ম্যাচ প্র্যাকটিস ওর জন্য বড় একটা ফ্যাক্টর হতো।’

সাকিব প্রিমিয়ার লিগে না খেলে আইপিএলে গিয়েও সুযোগ পাচ্ছেন না খেলার। তাই সাকিবকে দেশে ফিরিয়ে আনাই ভালো হবে বলে মনে করেন বোর্ড সভাপতি পাপন।

মন্তব্য: