লন্ডনের দ্য ওভাল স্টেডিয়ামে দুপুর সাড়ে তিনটায় দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামছে বাংলাদেশ। ম্যাচ শুরুর আগে বাংলাদেশ এবং দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটাররা নিজেদের মধ্যে ব্যাটিং বোলিংয়ের শ্রেষ্টত্ব নিয়ে জানবো।

বাংলাদেশের হয়ে আফ্রিকার বিপক্ষে সর্বোচ্চ উইকেট শিকার তালিকায় যৌথ ভাবে রয়েছেন সাকিব আল হাসান এবং পেসার রুবেল হোসেন। প্রোটিয়াসদের বিপক্ষে ১৩ ম্যাচ খেলে সাকিবের শিকার ১২টি উইকেট। অন্যদিকে আফ্রিকার বিপক্ষে মাত্র ৬ ম্যাচ খেলে ১২ উইকেট শিকার করেছেন রুবেল। তাই এ ম্যাচে সুযোগ পেলে সাকিবকে ছাড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা থাকবে রুবেলের।

বাংলাদেশের হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সব থেকে সাশ্রয়ী বোলার মোস্তাফিজুর রহমান। আফ্রিকার বিপক্ষে এই কাটার মাস্টারের ইকোনমি রেট মাত্র ৩.২০ যা বর্তমানে বাংলাদেশ দলের হয়ে খেলা সব বোলারের থেকে কম।

এদিকে বাংলাদেশিদের মধ্যে সাকিব আল হাসান প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ১৩ ম্যাচ খেলে সর্বোচ্চ ৩২২ রান সংগ্রহ করেছেন। এছাড়া ওপেনার সৌম্য সরকারের দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ব্যাটিং গড় ৭১ যা বাংলাদেশ দলের অন্য সব ব্যাটসম্যানদের থেকে বেশি। আর একমাত্র বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেছেন টাইগার উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম।

অপর দিকে আফ্রিকান পেসার কাগিসো রাবাদা বাংলাদেশের বিপক্ষে মাত্র ৬ ম্যাচে ঝুলিতে পুরেছেন ১৩টি উইকেট। যা বর্তমানে দুই দলে খেলা সব বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ। সেই সাথে ২০১৫ সালে ঢাকায় মাত্র ১৬ রান খরচে তুলে নিয়েছিলেন ৬টি উইকেট। যা এই দুই দলের সব বোলারদের মধ্যে সেরা বোলিং ফিগারও।

বিশ্বকাপের মঞ্চে এখন পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ খেলেছে ৩টি ম্যাচ। আর চার ম্যাচের একটিতে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে জয়ও আছে টাইগারদের। ২০০৭ সালের ৭ এপ্রিল, বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ৯ম আসরের সুপার এইটে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ।

মন্তব্য: