ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। আইসিসির কোড অব কন্ডাক্টে স্পষ্ট করে বলা আছে, বাজিকরদের কাছ থেকে ম্যাচ বা স্পট ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেলে সংশ্লিষ্ট বোর্ডকে জানাতে হবে। অথবা আইসিসির দুর্নীতি দমন সংস্থা- আকসুকে অবহিত করতে হবে। তবে সে খবর নিজে লুকিয়ে রাখলে সেটা শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে গণ্য হবে।

সমস্যাটা হলো দু’বছর আগে এক ওয়ানডে ম্যাচের আগে এমন প্রস্তাব পেয়ে সরাসরি না করে দিয়েছিলেন সাকিব। তবে আইসিসি বা বিসিবি কাওকেই বিষয়টি জানাননি তিনি। এই কারণেই দেশের ক্রিকেট ভক্তদের জন্য আসলো ভয়ংকর এই দুঃসংবাদ।

দুই বছরের মাঝে এক বছর স্থগিত নিষেধাজ্ঞা। আইসিসির দুর্নীতি-বিরোধী কোডের তিনটি আইন লঙ্ঘনের অপরাধ সাকিব মেনে নেওয়ার পর এ শাস্তি দিয়েছে আইসিসি। আকসুর কাছে তথ্য না জানানোয় এ শাস্তি পেয়েছেন সাকিব। ভবিষ্যতে একই অপরাধে আবারো অপরাধী হলে স্থগিত নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে।

মন্তব্য: