আসন্ন বিশ্বকাপের জন্য আগেই নিজেদের ১৫ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড। তবে দলটি রিজার্ভ স্কোয়াডে রয়েছে আরো ১০ ক্রিকেটার। সেই তালিকায় শেষ দুই ক্রিকেটার হিসেবে জায়গা করে নিয়েছেন কাইরন পোলার্ড এবং ডোয়াইন ব্রাভো। ইংল্যান্ডে খেলার সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম স্কোয়াডের কোনো খেলোয়াড় চোট পেলে বা অসুস্থ হয়ে পড়লে, তাঁর বদলে খেলার সুযোগ পাবেন ব্রাভো-পোলার্ডরা।

দেশের জার্সি ও ঘরোয়া ক্রিকেটে উল্লেখযোগ্য সাফল্য না থাকায় কাইরন পোলার্ড ও ডোয়াইন ব্রাভোর মতো মহা-তারকাদের দেশের বিশ্বকাপগামী প্রাথমিক দলে রাখেনি ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেট বোর্ড। কিছুদিন আগেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের সব ধরণের ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছিলেন ব্রাভো। সেই অবসর ভেঙে আবার বিশ্বকাপর নিয়ে নতুন সূচনা করার রাস্তাটা খুলে গেল ব্রাভোর সামনে।

ব্রাভো ও পোলার্ড ছাড়াও ক্যারিবিয়ারদের রিজার্ভ স্কোয়াডে কিমো পল। তিনিও আইপিএলে দিল্লির হয়ে মাঠে ভালো সময় কাটিয়েছেন। এছাড়া আয়ারল্যান্ডে সদ্য শেষ হওয়া ত্রিদেশীয় ক্রিকেট সিরিজে ধারাবাহিক পারফরমেন্সের সৌজন্যে সুনীল আমব্রিসের মতো তরুণ ব্যাটসম্য়ান ও রেমন রেইফারের মতো অল-রাউন্ডারদের হতাশ করেননি ওয়েস্ট ইন্ডিজের নির্বাচকরা।

এদিকে বিশ্বকাপের জন্য ঘোষিত স্কোয়াডে পরিবর্তন আনার সুযোগ রয়েছে আরও ৪ দিন। দলে ইনজুরি সমস্যা থাকলে আগামী ২৩মে পর্যন্ত স্কোয়াডে পরিবর্তন আনতে পারবে যেকোনো দল। এছাড়া বিশ্বকাপ শুরু হয়ে গেলেও আইসিসির অনুমতি সাপেক্ষে করা যাবে পরিবর্তন করা যাবে স্কোয়াডের খেলোয়াড়।

বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোয়াড

জেসন হোল্ডার (অধিনায়ক), ফ্যাবিয়েন অ্যালেন, ড্যারেন ব্রাভো, কার্লোস ব্রেথওয়েট, শেলডন কোট্রেল, শেনন গ্যাব্রিয়েল, ক্রিস গেইল, সিমরন হেটমায়ার, শাই হোপ (উইকেটরক্ষক), এভিন লুইস, অ্যাশলে নার্স, নিকোলাস পুরান, কেমার রোচ, আন্দ্রে রাসেল, ওসানে থমাস।

বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের রিজার্ভ স্কোয়াড
সুনিল অ্যামব্রিস, ডোয়াইন ব্রাভো, জন ক্যাম্পবেল, জোনাথন কার্টার, রস্টোন চেজ, শেন ডাওরিচ, কেমো পল, খ্যারি পিয়েরে, রেয়মন রেইফার এবং কাইরন পোলার্ড।

মন্তব্য: