চলতি মাসেই শ্রীলঙ্কার মাটিতে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। এই সিরিজই শ্রীলঙ্কা শিবিরে কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শেষ সিরিজ হতে চলেছে। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি এমনটাই জানিয়েছেন।

২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশ দলের হেড কোচের পদ থেকে সরে যান হাথুরুসিংহে। এরপর ২০১৮ সালে জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কা দলের হেড কোচ হিসেবে কাজ শুরু করেন তিনি। তার প্রথম অ্যাসাইনমেন্ট ছিল বাংলাদেশের বিপক্ষে। সেই সফরে তিন ফরম্যাটেই বাংলাদেশকে হারিয়ে শুভ সূচনা করেন তিনি।

তবে এরপর থেকেই হাথুরুর কোচিংয়ে কঠিন সময় পার করছে শ্রীলঙ্কা। প্রায় দেড় বছরে শ্রীলঙ্কাকে আফ্রিকার মাটিতে টেস্ট সিরিজ জয় ছাড়া আর বলার মতো কোনো সাফল্য এনে দিতে পারেনি তিনি। সবশেষে বিশ্বকাপেও ছয় নম্বরে থেকে আসর শেষ করেছে লংকানরা। তাই বিশ্বকাপের আগে থেকে হাথুরুর বিদায়ের ঘন্টা বাজতে শুরু করে। যদিও তিনি সেসব কানে তুলছিলেন না। তবে শ্রীলঙ্কার ক্রীড়ামন্ত্রী হরিন ফার্নান্দোর চাওয়ায় এবার চাকরিচ্যুত হতে হচ্ছে হাথুরুকে।

এসএলসি প্রধান শাম্মি সিলভাও ক্রীড়ামন্ত্রীর ইচ্ছার বাইরে যেতে পারবেন বলে মনে হচ্ছে না, ‘আমরাও একই কথা ভাবছি। তবে দেশে ফিরে দেখি কি করা যায়। সবার আগে আমাদের মন্ত্রী মহোদয়ের সঙ্গে কথা বলতে হবে।’
এদিকে বাংলাদেশ বিপক্ষে সিরিজের ফলাফলে হাথুরুর বিদায় কোনো প্রভাব পড়বে না জানিয়ে এসএলসি সভাপতি বলেন, আমার মনে হয় না সফরে এসব কোনো প্রভাব ফেলবে।’

হাথুরুর সঙ্গে শ্রীলঙ্কা বোর্ডের চুক্তির মেয়াদ ছিল ২০২০ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত। তবে হাথুরুসিংহেকে কেন্দ্র করেই গোটা কোচিং স্টাফের পদত্যাগ চেয়েছেন ক্রীড়ামন্ত্রী। হাথুরুর সঙ্গে কোচিং স্টাফে ব্যাটিং কোচ হিসেবে আছেন জন লুইস আর ফিল্ডিং কোচ স্টিভ রিক্সন।

মন্তব্য: