সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে আসন্ন বিপিএলে অংশগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সিলেট সিক্সার্স। শনিবার বিসিবির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বিসিবির সাথে আলোচনার পর এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন সিলেট সিক্সার্স ফ্রাঞ্চাইজি।

আজকের বৈঠকটি বৃহস্পতিবারে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও সেটি অনুষ্ঠিত হয়নি!

যার ফলে বিপিএলে সিলেট সিক্সার্সের অংশগ্রহণ নিয়ে দেখা গিয়েছিলো শঙ্কার কালো মেঘ। কিন্তু আজকের বৈঠকে লেনদেন কিংবা পাওনা সংক্রান্ত সকল সমস্যার সমাধান করে শঙ্কার কালো মেঘ দূর করে দেয় ফ্রাঞ্চাইজিটি।তাই সিলেটবাসী এখন চাইলে স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতেই পারেন!

আজকের বৈঠকে সকল সমস্যা সমাধানে যে মানুষটি সবচেয়ে বড় ভূমিকা পালনা করেন তিনি আর কেউ নন দলটির মালিক সাবেক অর্থমন্ত্রী আব্দুল মাল আবুল মুহিত! অসুস্থ শরীর নিয়েও এ ধরণের পদক্ষেপ নেওয়াতে সিলেটবাসীর পক্ষ থেকে একটু বাড়তি ধন্যবাদ পেতেই পারেন তিনি।

সকল ফ্রাঞ্চাইজির সাথে বৈঠক শেষ হলেও শুধুমাত্র সিলেট ফ্রাঞ্চাইজিই বাকি ছিলো। অনান্য ফ্রাঞ্চাইজিদের মত সিলেট ফ্রাঞ্চাইজিও বিসিবির কাছে নিজেদের আবেদন এবং পরিকল্পনা তুলে ধরেছেন।

সিলেট সিক্সার্সের প্রধান নির্বাহী ইয়াসির ওবায়েদ গণমাধ্যমকে জানান , ‘নতুন করে চুক্তি করা হবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর সাথে এবং খেলোয়াড়দের চুক্তি নিয়ে সব দলের মতামত নেওয়া হচ্ছে। আজ আমরা মতামত দিলাম। আমরা নিজেদের পর্যবেক্ষণ দিয়েছি। বিপিএল কীভাবে আরো সুন্দরভাবে হতে পারে সেটি নিয়ে ওনাদের পরামর্শ দিয়েছি।’

কি ধরণের প্রস্তাবনা দিয়েছেন সে ব্যাপারে জানতে গেলে তিনি জানান,
‘বিপিএলের একটা স্থায়ী মডেল চাই। কারণ দলগুলো চালানোর জন্য সবাই অনেক অর্থ ব্যয় করে।চার বছরের জন্য একটি দল চালানো বেশ কঠিন। তবে আমরা সবাই একসঙ্গে কাজ করছি পুরো টুর্নামেন্টটিকে সফল করার জন্য, যেটি বিগত দিনে হয়ে এসেছে। এফটিপি অনুসারে ২০২৩ সাল পর্যন্ত নির্দিষ্ট সময় সূচি প্রয়োজন। বিসিবি হয়তো আমাদের এটাও জানাতে পারবে যে আগামী বছরগুলোতে টুর্নামেন্টটি কোন সময় হবে। কারণ বিশ্বের অন্যান্য টুর্নামেন্টের সঙ্গে মিলে গেলে আমাদের জন্য পরিকল্পনা করাও অনেক কঠিন হয়ে যায় এবং ভালো খেলোয়াড় পাওয়া যায় না।’

মন্তব্য: