শনিবার দ্বাদশ আইপিএলের উদ্ধোধনী ম্যাচে বেঙ্গালুরু দলের তিনজন অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি, মঈন আলি ও এবি ডি ভিলিয়ার্সের উইকেট তুলে নেন হরভজন সিং। এতে যেন নতুন করে নিজের অস্বিত্বের জানান দিয়ে রাখলেন। ভাজ্জির এমন পারফরম্যান্সের পর ক্রিকেট বিশ্বের অনেকেই তাঁকে কুর্ণিশ জানিয়েছেন। সেই তালিকায় ছিলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন স্পিনার সাকলাইন মুস্তাকও।

তবে এতেই নিজ দেশের মানুষের তোপের মুখে পড়েছেন তিনি। ভারত-পাকিস্তান রাজনৈতিক সম্পর্ক এখন জটিল। তার প্রভাব যে ক্রিকেটেও পড়েছে তা আগেই পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল। এবার সেটা আরও স্পষ্ট হয়ে গেল। ভাজ্জিকে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠানোয় মহা সমস্যায় পড়তে হল বিশ্বের সেরা লেগ স্পিনার খ্যাত সাকলাইন মুস্তাককে।

দুজনেই বিশ্ব ক্রিকেটের স্বনামধন্য স্পিনার। দুসরা ও তিসরার জন্মদাতা সাকলাইন, এমনটাও অনেকে দাবি করেন। এদিকে, হরভজনের দুসরাও তাবর তাবর ব্যাটসম্যানদের কাবু করে ফেলে। যেমনটা দেখা গেলো শুক্রবার রাতের ম্যাচে। পারফরম্যান্স দেখে ভাজ্জিকে অভিনন্দন জানিয়ে নিজের দেশের ক্রিকেট সমর্থকদের কাছেই অপদস্থ হতে হল সাকলাইনকে।

আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে দুর্দান্ত পারফর্ম করায় ভাজ্জিকে অভিনন্দন জানিয়েছিলেন সাকলাইন। জবাবে হরভজনও তাঁকে ধন্যবাদ সাকি ভাই- লিখে পাঠান। আর তার পরই পরিস্থিতি জটিল হয়ে পড়ে। পাকিস্তানে এ নিয়ে তুমুল বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। পাকিস্তানের অনেকেই সাকলাইনকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন।

তাদের দাবি, সাকলাইন দেশবিরোধী কাজ করেছেন। পাকিস্তানি এক সমর্থক যেমন লিখেছেন- আপনি পাকিস্তানের জন্য লজ্জার। আরেকজন লিখেছেন- যারা আমাদের প্রতিদিন প্রকাশ্যে গালিগালজ করে, আপনি তাঁকেই সম্মান জানালেন! অন্য একজনের বক্তব্য- ওরা আমাদের পিএসএলে ক্রিকোটার পাঠায় না। আইপিএলে আমাদের ক্রিকেটারদের খেলতে দেয় না। আর আপনি কিনা তাঁকেই সম্মান জানালেন! আপনি কি পাগল হয়ে গেলেন!

মন্তব্য: