রবিবার দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে মাত্র ১৩৯ রান তোলে তারা। জবাবে ৮ উইকেট ও ৩৭ বল হাতে রেখেই জয় তুলে নেয় দিল্লি। এতে চলতি আইপিএলে টানা ছয় ম্যাচ হেরে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে পড়ে থাকল কোহলির দল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু।

আইপিএলের ইতিহাসে বেঙ্গালুরুর এটাই সব থেকে কদাকার পারফরম্যান্স। এর আগে ২০১৩ মৌসুমে একইভাবে টা‌না ছ’টি ম্যাচ হেরেছিল দিল্লি। এ বার সেই রেকর্ডকেই ছুঁলো বেঙ্গালুরু। আর এক ম্যাচই প্রমাণ করবে এই রেকর্ড ছাপিয়ে যাবেন কিনা বিরাট কোহলিরা।

এমন অবস্থায় রবিবার ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে কোহলিকে দেখা যায় হতাশ। বিমর্ষ। অসহায়। একা। আগ্রাসনের নাম মাত্র নেই। কোহলি বলেন, ‘‘আমরা প্রতিদিন অজুহাত দিতে পারি না। আমাদের সুযোগগুলো কাজে লাগাতে হত। আবারও আমরা ভাল খেলতে পারলাম না। এটাই আরসিবির কাহিনী এই মৌসুমে।”

বিরাট যদিও এই হারের অন্যতম কারণ হিসেবে তাঁর দলের ফিল্ডিং ব্যর্থতার দিকে আঙুল তুলেছেন। তিনি বলেছেন, ‘‘যে সুযোগ আমরা পেয়েছিলাম তা কাজে লাগাতে পারলে ১৫০ রান তোলাও বিপক্ষের কাছে কঠিন হত। শুরুতেই শ্রেয়সের ক্যাচ পড়ে। দিনের শেষে শ্রেয়সই আমাদের কাঁটা হয়ে দাঁড়ায়। আমাদের কাছে এটা নতুন কিছু নয়। মওসুমের প্রত্যেক ম্যাচেই এ ধরনের সুযোগ নষ্ট করেছি। আর কোনও অজুহাত দেওয়া সাজে না।’’

কলকাতার বিপক্ষে রাসেলের ক্যাচ ফেলেছিলেন বিরাটরা। তিনিই অবশেষে ম্যাচ জিতিয়েছিলেন। এরপর দিল্লির বিপক্ষে মাত্র ৪ রানে আইয়ারের ক্যাচ ফসকান উইকেট রক্ষক। কেন কোহলির দল বারবার ক্যাচ মিস করেছে? এমন প্রশ্নে বিরাটের ব্যাখ্যা, ‘‘যখন মাথা কাজ করে না, তখন সব সুযোগই মনে হয় কঠিন। আমাদের সঙ্গেও সেটাই হচ্ছে।’’

মন্তব্য: