রবিবার ওভালে প্রথম ম্যাচেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথমে ব্যাটিং করে বাংলাদেশ ৬ উইকেট হারিয়ে ৩৩০ রান তোলে। বিশ্বকাপে তো বটেই একদিনের ক্রিকেটে এটিই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ দলগত রান। সেই সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ২১ রানে হারিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করেছে বাংলাদেশ দল। শক্তিশালী প্রতিপক্ষ আফ্রিকাকে হারানোর পর এখন পুরো বিশ্বে চলছে টাইগার বন্দনা। সেই তালিকায় বাদ যায়নি ভারতীয় ক্রিকেট বিশ্লেষক-বিশেষজ্ঞরা। যারা সচরাচর বাংলাদেশের যে কোনো জয়কে খাটো করে দেখতে পিছ পা হয় না।

বর্তমানে ক্রিকেট বিশ্লেষক আকাশ চোপড়া লিখেন, ‘তিন বিভাগেই দক্ষিণ আফ্রিকাকে স্রেফ উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। দেখিয়েছে যে বাউন্সারে ঘায়েল হওয়ার পাত্র নয় তারা। এছাড়া জুনের প্রথম সপ্তাহে স্পিনের কী দুর্দান্ত ব্যবহার।’

মাশরারফি বিন মর্তুজার অধিনায়কত্বের প্রশংসা করে তিনি আরও লিখেন, ‘কৌশলগত দিক থেকে অধিনায়কত্বও হয়েছে দুর্দান্ত। দারুণ খেলেছ প্রতিবেশিরা। নিঃসন্দেহে মাশরাফি সেরা একজন অধিনায়ক। এশিয়ার অন্যতম সেরা।’

বরাবরের মতো বাংলাদেশ ক্রিকেটের ভক্ত প্রখ্যাত ধারাভাষ্যকার হার্শা ভোগলে। তিনি লিখেছেন, ‘বাংলাদেশ দলের কাছ থেকে সন্তোষজনক পারফরম্যান্স। ব্যাটিংটা দুর্দান্ত হয়েছে এবং খুব ভালোভাবে এগিয়ে নিয়েছে তারা। তবে দক্ষিণ আফ্রিকাকে আরও অনেক কাজ করতে হবে। বোলিংটা খুবই সাদামাটা মনে হয়েছে। মিডলঅর্ডারেও নির্ভরযোগ্য একজন প্রয়োজন তাদের।’

সাবেক ওপেনার ভিরেন্দর শেওয়াগ লিখেন, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন। অসাধারণ খেলেছো। এ জয় তোমাদেরই প্রাপ্য।’

আরেক সাবেক তারকা মোহাম্মদ কাইফ লিখেন, ‘বাংলাদেশের দুর্দান্ত একটি জয়। ব্যাটিংয়ে সবার সম্মিলিত পারফরম্যান্স এবং পরে বোলাররাও দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানদের হাত খুলে খেলার সুযোগ দেয়নি। দক্ষিণ আফ্রিকার ভাবার অনেক কিছুই আছে। বিশেষ করে বোলিং নিয়ে।’

ভিভিএস লক্ষণ লিখেছেন, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য অসাধারণ এক দিন। বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচেই নিজেদের ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসের দলীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ। কৌশলগত দিক থেকেও তারা দুর্দান্ত ছিলো এবং শেষদিকে দক্ষিণ আফ্রিকাকেও হাত খুলে খেলতে দেয়নি।’

মন্তব্য: