দ্বিতীয়বারের মত আর্জেন্টিনা কে দিয়েছিলেন বিশ্বকাপ শিরোপা জয়ের স্বাদ। ছিলেন ম্যারাডোনার কোচ। ৮১ বছর বয়সী সেই কোচ বিলার্দো ভুগছেন হাকিম-অ্যাডামস সিনড্রোম রোগে। যে কারণে কিছুদিন আগে অস্ত্রোপচারের জন্য হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন এই কিংবদন্তি। অস্ত্রোপচারের পর অবস্থার বিশেষ উন্নতি হয়নি, উল্টো মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন কার্লোস বিলার্দো।

খেলোয়াড়ি জীবনে মিডফিল্ডার হিসেবে খেলা বিলার্দো খেলেছেন সান লরেঞ্জো, দেপোর্তিভো এসপানিওল ও এস্তুদিয়ান্তেসে। আর্জেন্টিনা ছাড়াও কোচ ছিলেন কলম্বিয়া, লিবিয়া ও গুয়াতেমালার। তা ছাড়া সেভিয়া, এস্তুদিয়ান্তেস, বোকা জুনিয়র্সেরও কোচ ছিলেন তিনি।১৯৮২ বিস্বকাপ শেষে দায়িত্ব নেন আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের। পরের বিশ্বকাপ ১৯৮৬ তেই জেতান শিরোপা। অল্পের জন্য জেতাতে পারেননি পরের বিশ্বকাপ ১৯৯০ এর শিরোপা। ম্যারাডোনাও পরিপক্ব হয়েছেন তার অধীনেই। আর তিনি রয়েছেন এখন মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে।

গত চার জুলাই আর্জেন্টিনার বুয়েনস আয়ার্সে ‘আর্জেন্টিনা ইনস্টিটিউট অব ডায়াগনোসিস’ এ ভর্তি করা হয় কোচ কার্লোস বিলার্দো কে। ষাটোর্ধ্ব বয়সীদের রোগ হাকিম-অ্যাডামস সিনড্রোমে ভুগছিলেন তিনি, যে রোগের জন্য ২০১৮ সালে দু’বার হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছিল তাঁকে। অস্ত্রোপচারের পর অবস্থার উন্নতি না হওয়ার কারণে তাঁকে এখনো ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট(আইসিইউ) তে রাখা হয়েছে।

মন্তব্য: