পঞ্চম ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডে ক্রিকেটে একইসাথে ৫০০০ রান ও ২৫০ উইকেট অর্জনের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন সাকিব আল হাসান। এই অর্জনের পথে অন্য একটি রেকর্ড গড়েছেন তিনি।

বাংলাদেশের পোস্টার বয় সাকিব আল হাসান শুধু মাত্র বাংলাদেশের হয়েই মাঠ মাতান না। বরং তিনি খেলে বেড়িয়েছেন বিশ্বের প্রায় সকল প্রভাবশালী ফ্র্যাঞ্চাইজি লীগেরর হয়ে। সাথে কুড়িয়েছেন অভাবনীয় সুনাম এবং প্রচুর সমর্থক। বিশেষ করে আইপিএলের কল্যানে ভারতে রয়েছে তার প্রচুর ভক্ত সমর্থক।

শুধু ব্যাটেও নয়, বলেও রয়েছে তার সমান পারদর্শিতা। ১১ হাজারি রানের ক্লাবে প্রবেশের পরেই এবার প্রবেশ করলেন ২৫০ উইকেট শিকারের ক্লাবে সাকিব আল হাসান ।

বিশ্বকাপের আগে দিয়েই রাশিদ খানকে পিছনে ফেলে আবার নিজের এক নাম্বার জায়গা ফিরে পান তিনি। দেশ সেরা প্লেয়ার সাকিব আল হাসান ২০০৯ সাল থেকে আইসিসির এক নাম্বার অলরাউন্ডার হিসেবে আছেন প্রায় বেশীর ভাগ সময় ধরেই।

শুধু তাই নয়, সবচেয়ে কম ম্যাচ খেলে ৫০০০ রান এবং ২৫০ উইকেটের মালিক এখন সাকিবই।

এই অর্জনের জন্য সাকিবের লেগেছে মাত্র ১৯৯ ম্যাচ। পাকিস্তানের আব্দুর রাজ্জাকের ২৩৪ ম্যাচ, শহীদ আফ্রিদির ২৭৪ ম্যাচ, দক্ষিণ আফ্রিকার জ্যাক ক্যালিসের ২৯৬ ম্যাচ এবং শ্রীলঙ্কার সনাথ জয়সুরিয়ার ৩০৪ ম্যাচ লেগেছে।

সাকিবের বাইরে ওয়ানডে ইতিহাসে ৫৫০০ রান ও ২৫০ উইকেট আছে উপরের এই ৪ অলাউরাউন্ডারের।

রোববারের ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকান ওপেনার একে মার্করামকে আউট করে সাকিব এই মাইলফলক স্পর্শ করেন।

মন্তব্য: