মঙ্গলবার রাতে পয়েন্ট তালিকায় ১৭ নাম্বারে থাকা ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে কোমতো হার এড়ানো বার্সেলোনা। নাটকীয় এক ম্যাচে ৪-৪ গোলের ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে আরনেস্তো ভালভার্দের শিষ্যরা। যদিও এই ম্যাচে প্রথমার্ধে দুই গোলে এগিয়ে গিয়েছিল তারা।

প্রতিপক্ষের মাঠে আক্রমণে এগিয়ে থাকা বার্সা ম্যাচের ১২ মিনিটেই এগিয়ে যায়। এসময় ডান দিক থেকে স্বদেশি তারকা ম্যালকমের পাস থেকে বার্সাকে এগিয়ে দেন কুতিনো। এর চার মিনিট পর দলের ব্যবধান দিগুণ করেন ম্যালকম। আর্তুরো ভিদালের ক্রসে হেডে বল ভিয়ারিয়ালের জালে পাঠান ব্রাজিলিয়ান এ তারকা।

২৩ মিনিটে মিনিটে বাঁ পায়ের শটে ব্যবধান কমান সামুয়েল। প্রথমার্ধে ২-১ গোলে পিছিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় লা লিগা তালিকায় তলানির দিকে থাকা দলটি।

বিরতি থেকে ফিরে ভয়ংকর হয়ে উঠে ভিয়ারিয়াল। ৫০ মিনিটে স্যামুয়েলের অ্যাসিস্ট থেকে দলকে সমতায় ফেরান কার্ল টোকো একাম্বি। ডি বক্সের দুরুহ কোণ থেকে দারুণ এক গোল করেন তিনি।

পরিস্থিতি ঘোলাটে দেখে ৬১তম মিনিটে কুতিনহোকে বসিয়ে মেসিকে নামান ভালভার্দে। কিন্তু পরের মিনিটেই গোল খেয়ে বসে বার্সা। বাঁ দিক থেকে সতীর্থের রক্ষণচেরা পাস ডি-বক্সে পেয়ে প্রথম ছোঁয়ায় কোনাকুনি শটে দূরের পোস্ট দিয়ে জাল খুঁজে নেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার ভিসেন্তে ইবোরা।

৮০তম মিনিটে সতীর্থের লম্বা করে বাড়ানো বল নিয়ে ডি বক্সে ঢুকে গোল কার্লোস বাক্কার। বার্সেলোনা পিছিয়ে পড়ে ৪-২ ব্যবধানে।

নব্বই মিনিটের আগে পর্যন্ত ছিল এই স্কোর। তবে দলে যখন মেসি, সুয়ারেজের মতো ফুটবলাররা থাকে তখন চিন্তা কীসের। নির্ধারিত সময়ের শেষ লগ্নে ফ্রিকিক থেকে দুরন্ত গোল করে ব্যবধান কমান মেসি। এবং সংযোজিত সময়ের শেষে গোল করে সমতা ফেরান সুয়ারেজ।

এই ড্রয়ের পর ৩০ ম্যাচে ৭০ পয়েন্ট নিয়ে লা লিগার তালিকায় শীর্ষেই আছে বার্সা। সমান ম্যাচে ৬২ পয়েন্টে দুই নাম্বারে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

মন্তব্য: